জন্মনিবন্ধনে ফিঙ্গার প্রিন্ট-চোখের আইরিশ বাধ্যতামূলক কেন নয়: হাইকোর্ট

ফিঙ্গার প্রিন্ট ও চোখের আইরিশ

জন্মনিবন্ধনের সময় জাতীয় পরিচয়পত্রের ন্যায় নাগরিকদের ফিঙ্গার প্রিন্ট ও চোখের আইরিশ নেয়া কেন বাধ্যতামূলক করার নির্দেশ দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ রুল জারির এ আদেশ দেন।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের রেজিস্ট্রার জেনারেল, স্থানীয় সরকার সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব, পুলিশ মহাপরিদর্শকসহ সংশ্লিষ্টদের এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী আরিফুর রহমান মুরাদ ভূঁইয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

এর আগে ২০২০ সালের ১২ মার্চ সারডা সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক জনস্বার্থে আরিফুর রহমান মুরাদ ভূঁইয়া এ রিট দায়ের করেন।

রিট আবেদনে বেওয়ারিশ মরদেহ শনাক্তকরণে, নিখোঁজ ব্যক্তির সন্ধান পেতে এবং দ্রুত অপরাধী শনাক্ত করণে জন্মনিবন্ধনের সময় জাতীয় পরিচয় পত্রের অনুরূপ নাগরিকদের ফিঙ্গার প্রিন্ট ও চোখের আইরিশ নেয়া বাধ্যতামূলক করার নির্দেশনা চাওয়া হয়।

পরের সংবাদ

দণ্ডবিধিতে ‘পুরুষ ধর্ষণ’ অপরাধ হিসেবে সংযুক্ত করতে রিট

বৃহঃ জানু ১৪ , ২০২১
দণ্ডবিধির ৩৭৫ ধারায় নারী ধর্ষণের অপরাধের পাশাপাশি পুরুষ ধর্ষণকেও অপরাধ হিসেবে সংযুক্ত করতে এই ধারাটির সংশোধন চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় মানবাধিকার কর্মী তাসমিয়া নূহাইয়া আহমেদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের শিক্ষক ড. মাসুম বিল্লাহ এবং সমাজকর্মী ড. সৌমেন ভৌমিকের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার তাপস কান্তি বল […]
উচ্চ-আদালত