‘পাঁচ বছরে ধর্ষণের শিকার দশ হাজার নারী-শিশু’

‘পাঁচ বছরে ধর্ষণের শিকার দশ হাজার নারী-শিশু’

গত পাঁচ বছরে দেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছে অন্তত দশ হাজার নারী ও শিশু। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শিশু। আইনজীবী, মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, ধর্ষণের ঘটনায় যত মামলা হয়, প্রকৃত সংখ্যা তার চেয়ে অনেক বেশি। তারা বলেন, সামাজিকভাবে হেয় হওয়ার ভয়ে অনেকেই ধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ করেন না।

ক্রমেই বাড়ছে নারীর প্রতি সহিংসতা। অনেক ক্ষেত্রে নিকটাত্মীয়ের পাশাপাশি আপনজনের হাতেও নিগৃহিত হচ্ছে নারী। সাম্প্রতিক সময়ে হবিগঞ্জে বিউটি হত্যাকাণ্ড আলোড়ন সৃষ্টি করে দেশজুড়ে। অভিযোগের আঙুল ওঠে প্রতিবেশী বাবুল মিয়ার দিকে। পরে পুলিশের তদন্তে উঠে আসে, ধর্ষণের ঘটনায় বাবুল দায়ি হলেও বিউটিকে হত্যা করেছে তার বাবা।

রাজধানীতেও সাম্প্রতিক সময়ে ঘটেছে বেশ কয়েকটি নারী ও শিশু ধর্ষণের ঘটনা।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২০১৩ সাল থেকে ১৭ সাল পর্যন্ত দেশে ১৮ হাজার ৯শ’ ৯৮টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে সারাদেশে এখন পর্যন্ত হাজারের বেশি নারী ও শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে।

গণপরিবহন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমনকি নিজ গৃহেও সহিংসতার শিকার হচ্ছে নারীরা। চরম সামাজিক অবক্ষয়ের কারণে এমন ঘটছে বলে মনে করেন মানবাধিকার কর্মীরা।

আইন শৃংখলা রক্ষা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, ধর্ষণসহ যেকোনও যৌন নির্যাতনের বিরুদ্ধে তৎপর তারা।

নারী নির্যাতন বন্ধে আইনের কঠোর প্রয়োগের পাশাপাশি, নৈতিক শিক্ষা ও সামাজিক মূল্যবোধ বৃদ্ধির তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।একুশে টিভি

ফেইজবুক থেকে পাঠকের মন্তব্য

আপনার জন্য নির্বাচিত

পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ মামলার প্রতিবেদন ১৭ জুলাই

রাজধানীর শাহবাগে রুটিনসহ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে ঢাকা