আইনজীবী সেজে মহুরির শুনানি, ধরা খেলেন বিচারকের হাতেই, বারের হস্তক্ষেপে কারাগারে

স্বয়ং মহানগর দায়রা জজের আদালতে ভার্চ্যুয়ালি শুনানি করেন আইনজীবীর সহকারী (মুহুরী)। বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় বিচারক নিজেই ঢাকা আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দকে জানান।

বারের টাউট উচ্ছেদ কমিটি বৃহস্পতিবার (০৬ আগস্ট) অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

আটক ব্যক্তির নাম আবুল বাশার (৩৭)। তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটন বারের আইনজীবী মুহুরী বলে জানান।

তাকে আটকের পর ঢাকা বারের দফতর সম্পাদক এইচ এম মাসুম বাদী হয়ে আইনজীবী না হয়েও ভার্চ্যুয়াল আদালতে স্বয়ং শুনানি করায় প্রতারণার অভিযোগে কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, আবুল বাশার গত ৪ আগস্ট ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের ভার্চ্যুয়াল আদালতে আইনজীবী সেজে ভাটারা থানার একটি জিআর মামলায় ফৌজদারী বিবিধ আপিলে জামিন শুনানি করেন। বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় মহানগর দায়রা জজ ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ইকবাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক হোসেন আলী খান হাসানকে তা অবহিত করেন।

পরে সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশে বৃহস্পতিবার বেলা একটার দিকে ঢাকা জজ কোর্ট এলাকার চৌধুরী ভিলার (৩১ কোর্ট হাউজ স্ট্রট) ২০৪ নম্বর রুম থেকে আবুল বাশারকে আটক করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন বারের কার্যনির্বাহী সদস্য সাদেকুল ইসলাম ভূঁইয়া (জাদু)।

Leave a Reply

পরের সংবাদ

মামলা দায়েরে তামাদির সময়সীমা ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বর্ধিত হলো

শুক্র আগ ৭ , ২০২০
আইন অনুযায়ী নির্ধারিত সময়সীমা শেষ হয়ে যাওয়ায় ২৬ মার্চের পর থেকে বিচারপ্রার্থীরা যেসব আবেদন দাখিল করতে পারেননি তাদের জন্য আবেদনের পথ খুলে দিয়েছেন আপিল বিভাগ। বৃহস্পতিবার (০৬ আগস্ট) এক আদেশে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ভার্চ্যুয়াল আপিল বিভাগ দেওয়ানি ও ফৌজদারি আদালতের আদেশ বা প্রশাসনিক আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন করার সময়সীমা ৩১ আগস্ট […]